আমি ও আমার জীবনের রাজনৈতিক ট্রাজেডি-পর্ব-০৪

 

 

রাজনীতির কর্ম তৎপরতাই কাল হয়ে দাঁড়ালোঃ-
শিক্ষকতা ও ডাক্তারীর ফাঁকে ফাঁকে চলছিল আমার জীবনের রাজনীতি দুর্বল চেহারার ঘোড়াটি।

ঘোড়াটি খোঁড়া হয়ে গেলো ২০১৭ সালের ৬ সেপ্টেম্বর থেকে ১০ সেপ্টেম্বরের মধ্যে।

সেইদিনগুলির  মর্মান্তিক ঘটনা জীবনেও ভুলতে পারবো না।আর সেই ঘটনা এখনো বলার সময় ও সুযোগ আসেনি।

যদি কোনদিন সময় ও সুযেগ আসে, এখন অসময়। তাই বলা যাচ্ছে না।তো বিস্তারিত বলবো যদি আল্লাহ বেঁচে রাখেন।

আমার বর্তমান রাজনীতি প্রতিবন্ধকতার কারণঃ-
এর কারণ বহুবিধ।আমি রাজনীতি করতাম।এর বিভিন্ন সভা বা মিটিং এর ছবি,ভিডিও বা লাইভ ফেসবুক ও টুইটারে প্রকাশ করতাম।

এর জন্য প্রশাসনিকভাবে আমার উপর নজরদারি রাখা শুরু করলো বর্তমান আওয়ামী সরকার।

বারবার আমাকে হুমকি দিতো ম্যাসেঞ্জার ও ইমোতে।তাতেও কিছু মনে করিনি।

মাঝে মাঝে স্থানীয় আওয়ামী লীগের ছেলেরা আমার চেম্বারে এসে হুমকি দিতো।

বলতো রাজনীতি বাদ দিতে এবং ফেসবুকে লেখালেখি বাদ দিতে।তাও কিছু মনে করি নি।

এর পর ২০১৭ সালে রমজান মাসে ভেন্ডাবাড়ী বিএনপির অঙ্গ সংগঠন নিয়ে ভেন্ডাবাড়ি বাজারে একটা বিরাট ইফতার পার্টির আয়োজন করা হলো অনেক টাকা ব্যয় করে।

সেই অনুষ্ঠানটি সফলতার সাথে শেষ করা হলো।এলাকায় অনেক গুঞ্জন শুরু হলো সবাই প্রশংসা করতে লাগলো সেই ইফতার পার্টিটির।

সাধারন জনগণ বলতো যে এরকম ইফতার পার্টি ভেন্ডাবাড়ীতে কোনদিনও হয়নি।

আর আওয়ামী নেতাদের মুখে চোখে বলতো জনগণ যে ক্ষমতায় থেকে কি লাভ?বিএনপির মতো একটা ইফতার পার্টি দিতে পারেন না।

তাতে ওরা লজ্জিত হয় এবং আমার উপর চাপ আসে।
চাপ মোকাবিলা করতে করতে আমার উপর অপবাদের স্টিমরোলার চালায় সেই স্বার্থপর আওয়ামী নেতারা।যার যন্ত্রণা আজ পর্যন্ত ভোগ করতে হচ্ছে।

হায়রে জীবন হায়রে রাজনীতিঃ-
১২ সেপ্টেম্বর ২০১৭ মঙ্গলবার  ভেন্ডাবাড়ী ফখরুদ্দিন মাঠে স্থানীয় আওয়ামী নেতারা আমার বিরুদ্ধে  নারী কেলেঙ্কারির মিটিং করে হাটে মিথ্যা হাঁড়ি ভাঙ্গে।

এসব করার কারন আমাদের বিএনপির জনসমর্থন দিন দিন বাড়ছে।

ওদের কমছে।আর এসব নাকি আমার কারনে হচ্ছে। সারা জীবন ওদের কথা মনে থাকে।

কথায় বলে যে দুনিয়ার ধার দুনিয়াতে পরিশোধ । তাই হচ্ছে। আল্লাহ সব দেখেন,সবাই জানেন।

তাদের সরকার ক্ষমতায়, তাও একজন খুনের দায়ে জেলের ঘানি টানছে।

আর একজন বারবার টাকা খরচ করে চেয়ারম্যান হতে পারছেনা।

 

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Shares